অনুগ্রহ করে অপেক্ষা করুন...

al-ihsan.net
বাংলা | English

ইসলামিক শিক্ষা - ২৯ ফেব্রুয়ারী, ২০১৬
 
বিধর্মীরা মুসলমানদের খাদিম...
-মুহম্মদ খলীল আল ইবরাহীম।

বিধর্মীদের আবিষ্কৃত তৈরিকৃত যন্ত্রপাতি, আসবাব ইত্যাদি ব্যবহার নিয়ে অনেকেই মুসলমানদের মাঝে বিভ্রান্তি ছড়িয়ে থাকে। মহান আল্লাহ পাক তিনি ও নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনারা যেহেতু মুসলমানদের জন্য কাফির-মুশরিক তথা তাবৎ বিধর্মী অমুসলিমদের সাথে কোনো প্রকার মিল-মুহব্বত এবং তাদের তর্জ তরীক্বা, নিয়ম-নীতি নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছেন, তাহলে তাদের তৈরিকৃত বা উদ্ভাবিত আসবাব, যন্ত্রপাতি তথা কম্পিউটার, মোবাইলসহ অন্যান্য মেশিনারিজ ব্যবহার করার বিষয়ে অনেকেই সঠিক ও সুস্পষ্ট ফায়সালা করতে পারে না।
প্রথমত, এখানে যে বিষয়টি আমাদেরকে বুঝতে হবে, এ প্রসঙ্গে মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন, “মহান আল্লাহ পাক তিনি তোমাদের (ফায়দার) জন্য দুনিয়ার সমস্ত কিছু সৃষ্টি করেছেন।” (পবিত্র সূরা বাক্বারাহ শরীফ: পবিত্র আয়াত শরীফ-২৯)
এবং পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে উল্লেখ আছে- “নিশ্চয়ই দুনিয়া তোমাদের (খিদমতের) জন্য তৈরি করা হয়েছে আর তোমরা সৃষ্টি হয়েছে পরকাল মহান আল্লাহ পাক উনার জন্য।”
কাজেই সকল কাফিররা হলো মুসলমানদের খাদিম। তারা অনেক কিছু তৈরি করবে, আবিষ্কার করেছে এবং করবে। কিন্তু মুসলমানদেরকে যাচাই করতে হবে, দেখতে হবে পবিত্র কুরআন শরীফ, পবিত্র হাদীছ শরীফ, পবিত্র ইজমা ও ক্বিয়াস দিয়ে পরখ করে নিতে হবে- কাফিরদের ওই সকল খিদমতের কোনটা সম্মানিত ইসলামী শরীয়ত উনার খিলাফ, আর কোনটা খিলাফ নয়। তখন মুসলমানগণ যেটা শরীয়তসম্মত দেখবেন সেটা ইচ্ছা করলে গ্রহণ করলেও করতে পারেন। আর সম্মানিত ইসলামী শরীয়ত উনার খিলাফ হলে অবশ্যই অবশ্যই তা বর্জন করবেন। উল্লেখ্য, কোনো মুসলমানও যদি সম্মানিত শরীয়ত উনার খিলাফ কিছু আবিষ্কার করে তবে সেটাও গ্রহণযোগ্য নয়। কারণ মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেছেন, “তোমরা নেকী এবং পরহেযগারীর মধ্যে পরস্পর পরস্পরকে সাহায্য করো। পাপ এবং শত্রুতার মধ্যে পরস্পর পরস্পরকে সাহায্য করোনা।” (পবিত্র সূরা মায়িদা শরীফ: আয়াত শরীফ-২)
তবে মনে রাখতে হবে অমুসলিম, বিধর্মীদের আবিষ্কৃত জিনিস, দ্রব্যাদি, আসবাব ইত্যাদি ব্যবহার করার ক্ষেত্রে এই ফায়সালা হলেও তাদের যে কোন বিশেষ আমল, নিয়ম-নীতি অনুসরণ-অনুকরণ স্পষ্টতঃই সম্মানিত শরীয়তে নিষিদ্ধ ও হারাম। পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মাঝে ইরশাদ মুবারক হয়েছে- “যে যার সাথে মিল রাখে সে তাদের অর্ন্তভুক্ত।” অতএব মুসলমানদেরকে আল্লাহওয়ালাগণ উনাদের সাথেই মিল-মুহব্বত রাখতে হবে, আর কাফির অমুসলিমদের অনুসরন-অনুকরন থেকে বেঁচে থাকতে হবে।







For the satisfaction of Mamduh Hazrat Murshid Qeebla Mudda Jilluhul Aali
Site designed & developed by Muhammad Shohel Iqbal